সেই টিকটক হৃদয়কে গুলি করেছে ভারতীয় পুলিশ

পুলিশি হেফাজত থেকে পালানোর সময় ভারতীয় পুলিশের গু'লিতে গু'লিবি'দ্ধ হয়েছেন টিকটক ‍হৃদয় বাবু ও তার সহযোগী সাগর। ভারতের কেরালায় বাংলাদেশি তরুণীকে ভয়'ঙ্কর যৌ'ন নি'র্যাতন ও ভিডিও ধারণ করে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় ৫ জনকে গ্রে''প্ত ার করেছিল বে'ঙ্গালুরু পুলিশ।

ন্যাশনাল হেরাল্ড ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, শুক্রবার (২৮ মে) সকালে পুলিশের হেফাজত থেকে পালানোর চেষ্টা করলে টিকটক ‍হৃদয় বাবু ও ও তার সহযোগী সাগর পুলিশের গু'লিতে গু'লিবি'দ্ধ হয়। ভারতীয় পুলিশ বলছে, তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়।

এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে টিকটক হৃদয় বাবু, সাগর, মোহা'ম্ম'দ বাবা শেখ ও হাকিল নামে চার তরুণকে গ্রে'ফতার করে পুলিশ। তাদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার হাতিরঝিলের বাসিন্দা রিফাদুল ইসলাম হৃদয় রয়েছেন, যিনি এলাকায় ‘টিকটক হৃদয় বাবু’ নামে পরিচিত। তবে গ্রে'ফতার নারীর পরিচয় জানানো হয়নি।

ভারতীয় পুলিশ বলছে, গ্রে'ফতার সবাই অবৈ'ধভাবে ভারতে গেছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে যে তরুণীকে পৈশাচিক নি'র্যাতন করা হয়েছে, তাকেও এই চক্রটি অবৈ'ধভাবে ভারতে নিয়ে পতি'তাবৃত্তিতে বাধ্য করেছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। নি'র্যাতনের শিকার ওই তরুণীর সন্ধান এখনো পাওয়া যায়নি।

XMA Header Image
ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. শহিদুল্লাহ বৃহস্পতিবার (২৭ মে) গভীর রাতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ওই ঘটনায় রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় তরুণীর বাবার করা মা'মলায় বাংলাদেশি আ'সামিদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। ভিডিও দেখে নিজের মেয়েকে শনাক্তের পর বৃহস্পতিবার রাতে হাতিরঝিল থানায় মা'মলাটি করেন তিনি।

About admin

Check Also

দুই বছর আগেই আমাদের বিচ্ছেদ হয়েছে: মাহি

হঠাৎ শোনা গেল ঢালিউড তারকা মাহিয়া মাহির বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। বেশ আগেই তাঁরা এই প্রক্রিয়ার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *