সম্পত্তির ভাগ চাওয়ায় বোনের চুল কেটে নিলেন ভাই-ভাবি

বগু'ড়া জে'লার সোনাতলা উপজে'লার বাবার সম্পত্তির ভাগ চাওয়ায় আপন বড় ভাই স্কুল শিক্ষক গো'লাম রব্বানী ও তার স্ত্রী পপি বেগম রুখসানা খাতুনের (৩৩) মাথার চুল কে'টে দিয়েছেন। এ সময় রুখসানা থানা পুলিশের কাছে আসার চেষ্টা করলে বাড়ির গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন, অত্যাচার থেকে বাঁচতে ৯৯৯ ফোন করে নিজেকে রক্ষা করেন রুখসানা।

বৃহস্পতিবার (২০মে) সকালে বালুয়া ইউনিয়নের আট'কড়িয়া গ্রামে। এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সোনাতলা থানার ভারপ্রা'প্ত কর্মক'র্তা রেজাউল করিম রেজা। নি'র্যাতিত রুখসানা খাতুন আট'কড়িয়া গ্রামের মৃ'ত বীর মুক্তিযো'দ্ধা আব্দুল আজিজের মেয়ে এবং সোনাতলা উপজে'লার শিচারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে কর্মর'ত রয়েছেন। অ’পরদিকে তার ভাই গো'লাম রব্বানী একই উপজে'লার কাটনাহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মর'ত।

ভাইভাবির হাতে নি'র্যাতিত স্কুল শিক্ষক রুখসানা খাতুন জানান, ২০১৭ সালে বাবা মা'রা যাওয়ার পর থেকে তার বড় ভাই গো'লাম রব্বানী ও ছোট ভাই গো'লাম রাসুল বাবার সম্পত্তি ভোগ করতে থাকে। বাবা বেচে থাকাকালীন সময় বড় ভাই বাড়ির বাহিরে থাকতেন।

বাবা মা'রা যাওয়ার পর তিনি বাড়িতে এসে উঠেন। তারপর থেকে শুরু নি'র্যাতন। দুই ভাই গো'লাম রব্বানী ও গো'লাম রাসুল মৌখিক ভাবে তারা ১১ শতকের উপর বাড়ির অংশ ভাগ করে নেয়। রুখসানা খাতুন তার বাবার ঘরে বসবাস করে আসছেন। বাবার বাড়ি থেকে স্কুলে যাতায়াত করেন। দীর্ঘদিন ধরে তাকে নানা ভাবে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করছিল দুই ভাই। কয়েকদিন আগে তার ভাই গো'লাম রব্বানী তার বাথরুম বন্ধ করে দেয়। পরে তিনি তার প্রয়োজনীয় গোসল রান্নার সকল কাজ পার্শ্ববর্তী বাড়িতে করে আসছিলেন।

এর এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে বাড়ির টিউবওয়েলে বাসনপত্র পরিষ্কার করছিলেন। সেসময় গো'লাম রব্বানী ও তার স্ত্রী পপি বেগম রুখসানাকে নানা ভাবে গা'লিগা'লা'জ শুরু করে। রুখসানা তার ভাইয়ের কাছে বাবার সম্পত্তির ভাগ চায় এবং বলে জায়গা দিলে সে অন্যত্র চলে যাব'ে। একথা বলায় ভাইভাবি মিলে তাকে মা'রপিট শুরু করে। এবং ঘরে নিয়ে এসে তার ভাই ও ভাবি রুখসানার মাথার চুল কে'টে দেয়। ঘটনার পর রুখসানা থানা পুলিশের সহায়তা নিতে চাইলে গো'লাম রব্বানী বাড়ির মুল দরজাতে তালা ঝুলিয়ে দেয় এবং নানা রকম হু’মকি ধামকী দেন। এসময় রুখসানা নিজের নিরাপ'ত্তায় ঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে ৯৯৯ ফোন করে সহায়তা কামনা করেন। এরপর সকাল ১০টার দিকে সোনাতলা থানার এসআই আব্দুর রহিম ও পুলিশ সদস্যরা রুখসানাকে বাড়ি থেকে উ'দ্ধার করে।

সোনাতলা থানার ভারপ্রা'প্ত কর্মক'র্তা রেজাউল করিম রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এবি'ষয়ে ভুক্তভোগীর একটি অ'ভিযোগের প্রস্তুতি চলছে। আমর'া অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।
দুপুরে ভুক্তভোগী রুখসানা খাতুন জানান, তাকে বিভিন্ন ভাবে পরিবারের লোকজন থানায় অ'ভিযোগ দিতে বারণ করছেন। তিনি অ'ভিযোগ দায়ের করবেন বলেও জানিয়েছেন। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় অ'ভিযোগ দেয়ার প্রস্তুতি চলছিল বলে জানা গেছে।

About admin

Check Also

রিমান্ড শেষে কারাগারে মামুনুল

ছয় মা'মলায় ১৮ দিনের রি'মান্ড শেষে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে। আজ শনিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *