গাছের ডালে মাচা বানিয়ে আইসোলেশনে নোয়াখালির যুবক!

গাছের ডালে মাচা বানিয়ে আইসোলেশনে থাকাই প্রমাণ দিচ্ছে ভারতের করোনা ভ'য়াব'হতার করুণ চিত্র।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর, তেলে'ঙ্গানার নলগোন্ডা জে'লার কোঠানন্দিকোন্ডা গ্রামের বাসিন্দা ১৮ বছরের যুবক শিবা। গত ৪ মে তার শরীরে কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হয়। বিভিন্ন হাসপাতাল ও আইসোলেশন সেন্টারে ঘুরে ঘুরে কোথাও জায়গা হয়নি তাঁর। এদিকে বাড়িতে আলাদা থাকার ঘরও নেই। নিজ গ্রামে নেই কোনো আইসোলেশন সেন্টার। ফলে বাধ্য হয়ে সংক্রমণ ছড়ানো এড়াতে বাড়ির একপাশে থাকা গাছের ডালে উঠেছেন এই যুবক।

গাছের মগডালে বানানো মাচায় বসেই গণমাধ্যমকে শিবা বলেন, আমা'দের গ্রামে মাত্র দুদিন হলো আইসোলেশন সেন্টার বানানো হয়েছে। কিন্তু সেটা এখনও অনুপযুক্ত। আশপাশের গ্রামগু'লোকে আইসোলেশন সেন্টার তো নেই। এমনকি হাসপাতালও নেই। তাছাড়া করো’না সম্পর্কে আমা'র গ্রামের মানুষরা এখনও সচেতন না। এমনকি তাদের কোনো ধারণা নেই যে, দেশের করো’না পরিস্থিতি কোন দিকে এগোচ্ছে।

তিনি বলেন, আমি করো’নায় আ'ক্রা'ন্ত হলে গ্রামের কেউই আমাকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি। এদিকে বাড়িতে আলাদা থাকার মতো ঘর নেই। তাই করো’না যেন আমা'র গ্রামে না ছড়ায় সেজন্য গাছের মগডালে মাচা বানিয়ে থাকছি। নিজেকে আর সবার থেকে বিচ্ছিন'্ন রাখছি।

ভারতে করো’না পরিস্থিতি ভ'য়াবহ আকার নিয়েছে। চিতায় পোড়ানোর ব্যবস্থা না করতে পেরে নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে করো’নায় মৃ'তদের। এদিকে করো’না রোগীর জন্য জরুরি প্রয়োজনীয় ওষুধের অ’প্রতুলতা দেখা দিয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার সোনার হরিণে পরিণত হয়েছে। করো’না রোগীর ভিড়ে ভারতজুড়ে হাসপাতালের বেডের জন্য হাহাকার লেগেছে, সেফহোম বা আইসোলেশন সেন্টারেরও ঘাটতি দেখা দিয়েছে।

About admin

Check Also

রিমান্ড শেষে কারাগারে মামুনুল

ছয় মা'মলায় ১৮ দিনের রি'মান্ড শেষে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে। আজ শনিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *