টঙ্গীতে পোশাক শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, ১৫ জন গুলিবিদ্ধ

গাজীপুরের ট'ঙ্গী মিলগেট এলাকায় অবস্থিত হা'মিম গ্রুপের পোশাক কারখানার শ্রমিকদের স'ঙ্গে পুলিশের সং'ঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ১৫ শ্রমিক গু'লিবি'দ্ধসহ অর্ধশতাধিক আ'হত হয়েছে। সোমবার (১০ মে) দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, প্রতিদিনের মতো শ্রমিকরা সোমবার সকাল ৯টার দিকে তাদের কর্মস্থলে যোগদান করেন। পরে মালিক পক্ষ থেকে শ্রমিকদের তিন দিনের ছুটি ঘোষণা করে। এতে শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে গার্মেন্টস থেকে বের হয়ে ১০ দিনের ছুটির দাবিতে বিক্ষো'ভ করতে থাকে।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। এ সময় শ্রমিকদের স'ঙ্গে পুলিশের সং'ঘর্ষ বাধে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শতাধিক রাউন্ড শর্ট'গানের গু'লি ছুঁড়ে।

ওই কারখানার শ্রমিক দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ঈদের ছুটিসহ মোট ১০ দিনের ছুটি দাবি করা হয়েছিল। এরপর থেকেই আমা'দের ওপর হা'মলা শুরু করে। পুলিশ এসে গু'লি করে। ঈদে দেশের বাড়িতে গিয়ে আ'ত্মীয়-স্বজনদের স'ঙ্গে বছরে একবার ঈদ করব, এর চেয়ে বড় পাওয়া আমা'দের কাছে কিছুই নেই।’

তিনি জানান, পুলিশ সেখানে গিয়ে তাদের বিক্ষো'ভ থামাতে গু'লি করে। এতে তাদের ১৫ জন গু'লিবি'দ্ধ হন। আ'হত হন অন্তত ৩০ জন।

এদিকে শ্রমিকদের ইট-পাটকেলের আঘা'তে পুলিশের ৫জন আ'হত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দুপুর ২টায় শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। সেখানেও শ্রমিকদের সরাতে পুলিশ একাধিক টিয়ারসেল নি'ক্ষেপ করে। এখনো থেমে থেমে শ্রমিক-পুলিশ সং'ঘর্ষ চলছে।

এ বি'ষয়ে ট'ঙ্গী জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ইলতুৎমিশ জানায়, ঘটনার স'ঙ্গে স'ঙ্গে গাজীপুর মেট্রোপলিটনের পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, শ্রমিকদের হা'মলায় আ'হত হয়েছেন ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের এএসপি এস আলম, থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশসহ ৫ জন। আ'হত শ্রমিক ও পুলিশ সদস্যদের ট'ঙ্গীর শ’হীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

হাসপাতালের চিকিৎসক মাসুদ রানা জানান, এখন পর্যন্ত গু'লিবি'দ্ধ ও আ'হত ২৬ জনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

About admin

Check Also

রিমান্ড শেষে কারাগারে মামুনুল

ছয় মা'মলায় ১৮ দিনের রি'মান্ড শেষে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে। আজ শনিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *