জেলে থাকা আসামিরাও কেঁদেছে কাবিলার কান্না দেখে !

বর্তমান সময়ের তুমুল জনপ্রিয় ধা'রাবাহিক নাটক ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’। কাজল আরেফিন অমি পরিচালিত এ ধা'রাবাহিকটির কাবিলা, শুভ, হাবু ভাই, পাশা ভাই নামের চরিত্রগু'লোও যেনো দর্শকদের কাছে জীবন্ত হয়ে উঠেছে।

ম'ঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) শেষ হয়েছে নাটকটির তৃতীয় সিজন। শেষ পর্বে ঘটনাক্রমে পুলিশের হাতে ধ’রা পড়েছে কাবিলা। তাকে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে কাবিলার এ পরিণতি মেনে নিতে পারছেন না ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকের ভক্তরা। তাদেরকে কিছুটা আশা'হত 'হতে দেখা গেছে। ‘বাংলা নাটক’ এবং ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকের গ্রুপে কাবিলার মুক্তির দাবি করেছেন নেটাগরিকরা।

এদিকে জে'লের দৃশ্যে শুটিংয়ের অ'ভিজ্ঞতা শেয়ার করে কাবিলা খ্যাত জিয়াউল হক পলা'শ বলেন, ‘ধানমন্ডি থানার জে'লের মধ্যে শেষ দৃশ্যের শুটিং করেছিলাম। অমি ভাই শুধু বলেছিল, পলা'শ এটা শেষ দৃশ্য। এরপর ওই দৃশ্যে খুব কান্না করেছিলাম। আমা'র মতো মিশু ভাইয়েরও একই অবস্থা ছিল। আমা'দের অবস্থা দেখে থানার পুলিশ, জে'লে থাকা আ'সামিরাও কেঁদেছে। এগু'লো আমি কখনই ভুলতে পারবো না।’

নাটকটির পরিচালক কাজল আরেফিন অমি বলেন, ‘শেষ পর্ব প্রচারের পর দর্শকের ফোনের কারণে টিকতে পারছি না। এটাও ভালোবাসা। আমা'র কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল তিনটি সিজনে দর্শককে ধরে রাখা। সে জায়গাটি করতে পেরেছি। আলহা'ম'দুলিল্লাহ।’

তিন সিজনের জনপ্রিয়তা দর্শকের মধ্যে প্রাণবন্ত রাখতে চতুর্থ সিজন আসবে কিনা সে প্রস'ঙ্গে নির্মাতা জানান, ‘জানি না সিজন ফোর করব কি না। তবে এইটুকু নিশ্চিত করে বলছি- যদি জীবিত থাকি এবং সুস্থ থাকি তাহলে কখনো না কখনো, কোন না কোন মাধ্যমে আপনাদের সামনে অবশ্যই তুলে ধরব, কেমন আছে আপনাদের প্রিয় চরিত্রগু'লো। ভালবাসা ও কৃতজ্ঞতা আপনাদের প্রতি। সবাই ভুলে গেলেও আমি হয়ত কখনোই ভুলব না আমা'র প্রিয় চরিত্রগু'লোকে।’

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *