উপাচার্য জানালেন আজানের কারণে ঘুমাতে পারছেন না বলে অভিযোগ

ফজরের সময় মাইকে আজানের সুরে তার ঘু'মের প্রচণ্ড ব্যাঘা'ত ঘটে। এমনকি শুরু হয় মাথাব্যথাও। তাই অবিলম্বে তার বাড়ির কাছে অবস্থিত মসজিদে মাইকে আজান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

এজন্য জে'লা প্রশাসককে চিঠিও দিয়েছেন ভারতের উত্তরপ্রদেশের এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য স'ঙ্গীতা শ্রীবাস্তব।

চিঠি পাওয়ার পর জে'লা প্রশাসক তাকে আশ্বস্ত করেছেন যে, আইন অনুযায়ী পদ'ক্ষেপ নেয়া হবে। তবে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় বিতর্ক শুরু হয়েছে। অনেকেই মাইকে আজান বন্ধে মত দিয়েছে। শোনা যাচ্ছে উল্টো কথাও। অনেকেই বলছে, রাজ্য ক্ষমতায় বিজেপি আসার পর থেকেই এগু'লো ঘটছে।

জে'লা প্রশাসক ভানুচন্দ্র গোস্বামীর কাছে লেখা চিঠিতে স'ঙ্গীতা বলেন, আজান থেমে গেলেও আর ঘু'মাতে পারেন না। মাথা ব্যথা করে। সারাদিনের কাজেও এর প্রভাব পড়ে। তবে তিনি কোনও ধ'র্মের বিরোধী নন বলেও জানান স'ঙ্গীতা।

কিন্তু রমজানের সময় ভোর ৪টা থেকে মসজিদের মাইকে যেভাবে ঘোষণা শুরু হয়, তাতে এলাকার মানুষদের অসুবিধা হয় বলে চিঠিতে লিখেছেন এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। ওই চিঠির কপি ইতোমধ্যেই ডিভিশনাল কমিশনারের কাছেও পাঠিয়েছেন তিনি।

এদিকে স'ঙ্গীতার এমন অ'ভিযোগ ঘিরে বিতর্ক শুরু হয়েছে। অযোধ্যার সন্ন্যাসী ও পুরোহিতরা তাকে সমর'্থন করছেন। তাদের দাবি, জোরে নয় বরং মাইকে যদি মাঝারি শব্দে আজান দেয়া হয় তাহলে কারও অসুবিধেই হবে না। সমর'্থন দিয়েছে বিজেপিও।

About admin

Check Also

রিমান্ড শেষে কারাগারে মামুনুল

ছয় মা'মলায় ১৮ দিনের রি'মান্ড শেষে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে। আজ শনিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *