জে’নে নিন শীতে ত্বকের যত্ন নিতে জেল্লা ধরে রাখতে ভ্যাসলিনের নানা ব্যবহার!

বেশ ভালোই শীত পড়ল। আর শীত পড়া মানেই আমা'দের মনে প’ড়ে ভ্যাসলিনের কথা। আট' থেকে আশি সকলের এই জিনিসটি না হলে কিন্তু এই শীতে একদম চলে না। তবে, আপনারা কি এই ভ্যাসলিনের সব রকমের উপকারিতা জা’নেন? জা’নেন ঠিক কি কি ভাবে আপনার ত্বকের জে’ল্লা ধ’রে রাখতে আর যত্ন নিতে এই শীতে ব্যবহার করবেন ভ্যাসলিন?

১. ঠোঁট ফাটা আ’টকাতে: ঠোঁট ফাটা ব’ন্ধ ক’রতে সেই কবে থেকে আম’রা ভ্যাসলিন ব্যবহার করে আসছি। দিনে যে কোনও সময়েই আম’রা ভ্যাসলিন মেখে নিই ঠোঁটে। আর আম’রা উপকারও তো পাই এতে। ঠোঁট আমা'দের ত্বকের মধ্যে সবচেয়ে সেনসিটিভ অংশ। তাই এটি খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়। একটু ভ্যাসলিন রাতে ঘু'মোতে যাব'ার আগে ব্যবহার করলেই কিন্তু ঠোঁট ফাটার থেকে এই শীতে রেহাই পাবেন।

২. নাকের জ্বা'’লা ব’ন্ধ ক’রতে: এই শীতের সময়ে আরেকটি খুব বড় স’মস্যা হয় নাক সুড়সুড় আর নাক শুকিয়ে যাওয়া নিয়ে। সর্দি হলে নাক থেকে জল পড়ার পাশাপাশি এই স’মস্যাও কিন্তু আমা'দের খুবই ভোগায়। যতই আম’রা রুমাল বা ন্যাপকিন ব্যবহার করি না কেন এই সব জিনিসের ঘষায় নাক আরও ড্রাই হয়ে যায়। তাই এই শীতে ভ্যাসলিন ব্যবহার করুন। নাকের চারপাশে অল্প ভ্যাসলিন লা’গিয়ে রাখলে ওই অংশ তার ময়েশ্চার ফি’রে পাবে।

৩. ম্যাট লিপস্টিপ হিট: অন্য সময়ে ম্যাট লিপস্টিক পরে বেশ ফ্যাশনিস্তা হওয়া যায়। কিন্তু শীতের সময়ে এই ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করাটাই আমা'দের কাছে দুঃস্বপ্নের মতো মনে হয়। ম্যাট লিপস্টিক আমা'দের ঠোঁটের আ’সল টেক্সচার খানিক ধ’রে রাখে। আর ডিপ লিপস্টিক তার রঙ দিয়েই ঠোঁট ঢেকে দেয়। তাই ম্যাট লিপস্টিক সাধারণ সময়ে পরে বোল্ড লুক আনলেও শীতে তা হয় না। এই সময়ে ঠোঁট ফেটে থাকে। কিন্তু ঠোঁটে আগে ভ্যাসলিন দিয়ে খানিক পর যদি ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করেন, তাহলে কিন্তু কোনও স’মস্যাই হয় না।

৪. ডার্ক সার্কেল প্র’তিরো’ধে: ঠোঁটের মতো আরেক সেনসিটিভ জায়গা হল চোখের নিচের অংশ। শীতের সময়ে আম’রা খুব একটা জল ধ’রতে চাই না। তাই স্কিন ক্লিনসিং বা ময়েশ্চারাইজিং অনেক সময়ে আম’রা বাদ দিয়ে ফেলি। প্রতিনিয়ত ময়েশ্চার হারাতে হারাতে এই অংশও কিন্তু তার জে’ল্লা হারিয়ে ফে’লে। কিন্তু জে’ল্লা ফি’রে আসতে পারে ভ্যাসলিনের হাত ধ’রে। তুলোয় একটু ভ্যাসলিন নিয়ে চোখের নিচের অংশে লা’গিয়ে নিন। ১০ মিনিট রেখে জল দিয়ে মুছে নিন। টানা এটি ক’রতে থাকলে খুব তাড়াতাড়ি দেখবেন চোখের তলার কালি চলে গেছে।

৫. পায়ের যত্নে: গোড়ালি ফেটে যাওয়া, পায়ের আঙুলের মাঝে জ্বা'’লা করা, ড্রাই হয়ে যাওয়া খুব সাধারণ ঘ’টনা এই শীতে। আর দিনের পর দিন পায়ে ঠিক করে জল না দেওয়ার জন্য, ময়েশ্চার না থাকার জন্য কিন্তু বাজে গন্ধ আসতে পারে পা থেকে। রোজ রাতে শুতে যাওয়ার আগে একটু ভ্যাসলিন দিন পায়ে। তার ওপর দিয়ে মোজা পরে নিন। এতেই আপনার পা সার্বিক ভাবে সুন্দর থাকবে।

৬. কনুই শুকিয়ে গেলে: কনুই শুকিয়ে কালচে হয়ে যাওয়া আর খড়খড়ে হওয়ার স’মস্যার সমাধান এই ভ্যাসলিন। রোজ দিনে যতবার পারবেন কনুইতে দিন ভ্যাসলিন। জল দিয়ে ধোয়ার দরকার নেই। টানা একমাস এটা করলে আস্তে আস্তে দেখবেন কনুই তার আগের রঙ ফি’রে পেয়েছে। খুব ভাল হয় যদি উ’ষ্ণ জলে স্নান করে আসার পর এটি করেন। এতে ভ্যাসলিন স্কিনের ভি’তরে ঢু’কতে পারবে সহজে। দেখবেন এই শীতে আর খুব একটা টানছে না কনুই।

৭. স্কিনের লালচে হওয়া: অনেক সময়ে শীতকালে ঘু'ম থেকে উঠে আম’রা দেখি আমা'দের গাল লালচে হয়ে গেছে। আর বেশ জ্বা'’লাও করে সেই জায়গাটা। এটা হয় কম জল খাওয়ার জন্য আর ময়েশ্চারাইজিং কিছু নিয়ম করে ব্যবহার না করার জন্য। স্কিন তার হাইড্রেশন হারিয়ে ফে’লে। রোজ রাতে আর কিছু ব্যবহার করুন আর না করুন, ভ্যাসলিন অবশ্যই হাতে, মুখে, গলায় মেখে নিন। সারা রাত রেখে দিন। দেখবেন এই লালচে হয়ে যাওয়া কমে যাব'ে।এই কয়েকটা ভ্যাসলিনের প্রয়োগ অনবদ্য। সব নিয়ম যদি ব্যবহার ক’রতে পারেন তাহলে এই পার্ট সিজনে আর কোনও চিন্তাই থাকবে না।

About admin

Check Also

রিমান্ড শেষে কারাগারে মামুনুল

ছয় মা'মলায় ১৮ দিনের রি'মান্ড শেষে কারা'গারে পাঠানো হয়েছে হেফাজত নেতা মামুনুল হককে। আজ শনিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *