কবিতা তুমি আমারে বাঁচতে দিলা না!

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে সোহেল মিয়া (৩৫) নামে এক ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত লা'শ উ'দ্ধার করেছে পুলিশ। তার হাতের তালুতে লেখা ‘কবিতা তুমি আমা'রে বাঁচতে দিলা না। তুই আমা'রে শেষ করে দিলে।’ আর কব্জির ওপরের অংশে লেখা- ‘কবিতা তুই আমা'রে বাঁচতে দিলে না।’

সোহেল উপজে'লার তারুন্দিয়া ইউনিয়নের সরতাজবহেরা গ্রামের অবসরপ্রা'প্ত ব্যাংক কর্মক'র্তা আবদুর রহিমের ছেলে। তিনি তারুন্দিয়া ইউনিয়নের সরতাজবহেরা বাজারে সোহেল কম্পিউটার নামের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতেন।

সোমবার (৩ মে) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ওই বাজারে সোহেল কম্পিউটার নামে তার দোকান থেকে লা'শ উ'দ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এর আগে দুপুর ২টার দিকে ঝুলন্ত মর'দে'হ দেখতে পায় নি'হত সোহেলের ছোট ভাই জুয়েল।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, দুপুর ২টার দিকে সোহেলের ছোট ভাই জুয়েল দোকানে গিয়ে গিয়ে দেখেন দোকান খোলা কিন্তু তার ভাই নেই। তখন দোকানের পেছনে রেস্ট করার অংশে গিয়ে দেখেন বড় ভাই সোহেলের লা'শ আড়ার স'ঙ্গে ঝুলছে। এমতাবস্থায় জুয়েলের ডাক চিৎকারের স্থানীয় লোকজন এসে সোহেলকে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লা'শ উ'দ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নি'হতের স্ত্রী আরিফা আক্তার বলেন, আমা'র সাথে আমা'র স্বামীর ঝগড়া কিংবা মনোমালিন্য ছিলোনা। আমা'র সাথে সবসময় ভালো ব্যবহার করতো। কোন নারীর সাথে সম্পর্ক ছিলো কিনা আমি জানিনা।

এ বি'ষয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রা'প্ত কর্মক'র্তা (ওসি) মো. আবদুল কাদির মিয়া বলেন, নি'হত যুবকের হাতে কবিতা নামে এক নারীর কথা লেখা রয়েছে। প্রেমের সম্পর্কের টানা পোড়েনে আ'ত্মহ'ত্যার পথ বেছে নিতে পারেন।

তিনি বলেন, লা'শ উ'দ্ধার করে ময়নাত'দন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর'্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অ’পমৃ'ত্যু মা'মলা হয়েছে। তবে হাতে লেখা কবিতার সন্ধান করার চেষ্টা চলছে।

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *