স্ত্রীর লাশ সাইকেলে চাপিয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি বৃদ্ধের, ‘

পড়শির স্ত্রী ‘করো’না’ আ'ক্রা'ন্ত হয়ে মৃ'ত। তাই ছোঁয়া এড়াতে দাহকাজে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এলেন না গ্রামের কেউ। অগত্যা বাধ্য হয়ে সাইকেলে দে'হ চাপিয়ে কয়েক কিলোমিটার দূরে শ্মশানের উদ্দেশে রওয়ানা দিলেন বৃ'দ্ধ। হৃদয়বিদারক এই ঘটনা লখনউ থেকে ২০০ কিমি দূরে অম্বরপুর গ্রামের। সম্প্রতি একটা ছবি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

সেই ছবিতে দেখা গিয়েছে, ক্লান্ত-শ্রান্ত বৃ'দ্ধ মাথা নিচু করে বসে আছেন। আর একটু দূরে শোয়ানো সাইকেলের ওপর পরে স্ত্রীর মৃ'তদে'হ। এরপরেই নড়েচড়ে বসে জে'লা প্রশাসন। এগিয়ে এসে সেই বৃ'দ্ধার দাহের বন্দোবস্ত করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, (২৬ এপ্রিল) করো’নায় মৃ'ত্যু হয়েছে বৃ'দ্ধার। জে'লা হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্সে গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়েছিল লা'শ।

কিন্তু গ্রামের লোকজন সংক্রমণের ভ'য়ে সেই বৃ'দ্ধার দাহকাজ বয়কট করেছেন। এরপরেই স্ত্রীর দে'হ সাইকেলে চাপিয়ে শ্মশানের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছিলেন বৃ'দ্ধ। কিন্তু মৃ'তদে'হের ভারে তাঁর পক্ষে সম্ভব ছিল না সাইকেল চালিয়ে শ্মশানে পৌছনো। মাঝ রাস্তায় সাইকেল ফেলে বসে পড়েন তিনি। এরপরেই বি'ষয়টা জানাজানি 'হতে সেই বৃ'দ্ধকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে পুলিশ।

দাহের সব সরঞ্জাম নিয়ে দে'হ উ'দ্ধার করে রামঘাট শ্মশানে সম্পন্ন করা হয়েছে সেই বৃ'দ্ধার দাহকাজ। এমনটাই জানিয়েছে জে'লা পুলিশের একটা সুত্র। এদিকে, সংক্রমণ বৃ'দ্ধি পাওয়ায় এ বার কড়া পদ'ক্ষেপ করল যোগী আদিত্যনাথ সরকার। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে উত্তরপ্রদেশে সম্পূর্ণ লকডাউনের সি'দ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আপাতত ম'ঙ্গলবার সকাল ৭টা পর্যন্ত চলবে এই লকডাউন।

সংবাদ সংস্থা এএনআই (উত্তরপ্রদেশ)- এর তরফে টুইট করে এ কথা জানানো হয়েছে। টুইট বলা হয়েছে, ‘শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে ম'ঙ্গলবার সকাল ৭টা পর্যন্ত রাজ্যে এ বার সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে। বর্তমান কোভিড পরিস্থিতিতে এই সি'দ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে’।

গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তরপ্রদেশে নতুন আ'ক্রা'ন্তের সংখ্যা ২৯ হাজার ৮২৪, যা এক দিনে সর্বাধিক। এখনও পর্যন্ত এই রাজ্যে মোট আ'ক্রা'ন্তের সংখ্যা ১১ লক্ষ ৮২ হাজার ৮৪৮। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃ'ত্যু হয়েছে ২৬৬ জনের। ফলে যোগীরাজ্যে মোট মৃ'ত্যুর সংখ্যা পৌঁছেছে ১১ হাজার ৯৪৩-এ। এই মুহূর্তে উত্তরপ্রদেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩ লক্ষ ৪১ জন

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *