চেষ্টা করেও দেশ ছাড়তে পারলেন না সায়েম সোবহান

একটি চার্টাড ফ্লাইট দেশ ছেড়েছে বসুন্ধ’রা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের পরিবার। তবে চেষ্টা করেও দেশ ছাড়তে ব্য'র্থ হয়েছেন সায়েম সোবহান আনভীর।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে আনভীরের স্ত্রী-সন্তানসহ ৮ জন দেশ ত্যাগ করেন। তাদের গন্তব্য দুবাই বলে জানা গেছে। বিমানবন্দর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, বিশেষ ফ্লাইটে সায়েম সোবহান আনভীরের স্ত্রী সাবরিনা সোবহানসহ মোট ৮ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে ছিলেন আনভীরের ‍দুই সন্তানও। ফ্লাইটে আরও ছিলেন আনভীরের ভাইয়ের স্ত্রী ইয়াশা সোবহান এবং তার কন্যা। এছাড়া তাদের স'ঙ্গে ছিলেন আরও ৩ জন। তারা হলেন দিয়ানা, মোহা'ম্ম'দ কাদের, হোসনে আরা খাতুন।

সূত্র জানায়, এই ফ্লাইটে সায়েম সোবহান আনভীর যাওয়ার জন্য তৎপরতা চালালোও আ'দালতের নিষে'ধাজ্ঞা থাকায় ব্য'র্থ হন।

প্রস'ঙ্গত, গত ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় গু'লশানের ১২০ নম্বর সড়কের ১৯ নম্বর বাসার একটি ফ্ল্যাট থেকে মুনিয়ার লা'শ উ'দ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান তানিয়া বাদী হয়ে বসুন্ধ’রা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের বিরু'দ্ধে আ'ত্মহ'ত্যায় প্ররোচনার অ'ভিযোগ এনে একটি মা'মলা দায়ের করেন।

মা'মলার অ'ভিযোগে বলা হয়েছে, সায়েম সোবহানের স'ঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল মুনিয়ার। প্রতিমাসে এক লাখ টাকা ভাড়ার বিনিময়ে সায়েম সোবহান মুনিয়াকে ওই ফ্ল্যাটে রেখেছিল। আনভীর নিয়মিত ওই বাসায় যাতায়াত করতো। তারা স্বামী-স্ত্রীর মতো করে থাকতো। মুনিয়ার বোন অ'ভিযোগ করেছেন, তার বোনকে বিয়ের কথা বলে ওই ফ্ল্যাটে রেখেছিল। একটি ছবি ফেসবুকে দেওয়াকে কেন্দ্র করে সায়েম সোবহান তার বোনের ওপর ক্ষি'প্ত হয়। তাদের মনে হচ্ছে, মুনিয়া আ'ত্মহ'ত্যা করেনি। তাকে হ'ত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *