মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ঢাকায় ১৭ মামলা

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে গ্রে''প্ত ার করা হয়েছে। পুলিশের হাতে গ্রে''প্ত ার হওয়া হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হকের বিরু'দ্ধে শুধুমাত্র রাজধানীর বিভিন্ন থানাতেই ১৭টি মা'মলা রয়েছে বলে জানা গেছে। এর মধ্যে মা'রধর, হ'ত্যার উদ্দেশ্যে করা আঘা'তে গু'রুতর জ'খম, চুরি, হু’মকি এবং ইচ্ছাকৃতভাবে ধ'র্মীয় কাজে গোলযোগের অ'ভিযোগ এনে মোহা'ম্ম'দপুর থানায় মামুনুলের বিরু'দ্ধে একটি মা'মলা করেছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি।

ডিএমপি সদরদফতর সূত্রে জানা গেছে, ডিবির মতিঝিল বিভাগে ত'দন্তাধীন আট'টি মা'মলা, লালবাগ বিভাগে ত'দন্তাধীন দুটি মা'মলা এবং তেজগাঁও বিভাগে ত'দন্তাধীন একটি মা'মলার এজাহারভুক্ত আ'সামি মামুনুল হক। এছাড়া মতিঝিল থানায় ত'দন্তাধীন একটি এবং পল্টন থানায় ত'দন্তাধীন চারটি মা'মলায় তার নাম রয়েছে।

১৬টি মা'মলার মধ্যে ১৫টিই হয়েছে ২০১৩ সালের ৫ মে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে হেফাজতের তাণ্ডবের পর। ওই ১৫ মা'মলার বাদী পুলিশ। ১৬ মা'মলার অন্যটি সম্প্রতি পল্টন থানায় দায়ের করেন যুবলীগের এক নেতা। জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররম এলাকায় পুলিশ, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের স'ঙ্গে হোফজতের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সং'ঘর্ষের পর মামুনুলের বিরু'দ্ধে মা'মলাটি করা হয়।

আরেকটি হলো মোহা'ম্ম'দপুর থানার মা'মলা। এর আগে রোববার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর মোহা'ম্ম'দপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মা'দরাসা থেকে দুপুর পৌনে ১টার দিকে তাকে গ্রে''প্ত ারকরা হয়। তেজগাঁও বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) হারুন-অর-র'শিদ বি'ষয়টি নিশ্চিত করেছেন। হারুন অর রশীদ জানান,

হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রে'ফতারের পর তাকে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনারের কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে। আপাতত মোহা'ম্ম'দপুর থানার মা'মলায় তাকে গ্রে'ফতার দেখানো হয়েছে। অন্য মা'মলার বি'ষয়ে পরে সি'দ্ধান্ত নেওয়া হবে। ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম জানান, গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিমের যৌ'থ অ'ভিযানে মামুনুলকে গ্রে'ফতার করা হয়।

গোয়েন্দা পুলিশের কর্মক'র্তারা জানান, মামুনুল হক ওই মা'দরাসার দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে অবস্থান করছিলেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে গোয়েন্দা পুলিশ ও তেজগাঁও বিভাগের শতাধিক পুলিশ প্রথমে ওই মা'দরাসাটা ঘিরে ফেলে। এ সময় মা'দরাসার ভেতরে দেড় শতাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী পুলিশের অ'ভিযানে বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও অতিরিক্ত পুলিশ দেখে হাল ছেঁড়ে দেয়। পরে মামুনুল হককে দোতালার ওই কক্ষ থেকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে তোলা হয়।

প্রথমে তাকে মিরপুর সড়কে পুলিশের তেজগাঁও ডিভিশনের ডিসি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। গোয়েন্দা পুলিশের কর্মক'র্তারা জানান, মামুনুল হকের বিরু'দ্ধে ২০১৩ সালের ৫ মে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের হওয়া একাধিক মা'মলা রয়েছে। এছাড়া সাম্প্রতিক মোদিবিরোধী আন্দোলনের সময়ও সহিং'সতা করায় একাধিক মা'মলায় মামুনুল হকের নাম রয়েছে। প্রথমে তাকে পুরনো মা'মলায় গ্রে'ফতার দেখিয়ে আ'দালতে পাঠানো হবে। গত ২৬ মা'র্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের সময় সহিং'সতা ও রিসোর্টকাণ্ডে রাজধানীর পল্টন থানা ও নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দুটি মা'মলা হয়েছে মামুনুল হকের বিরু'দ্ধে।

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *