চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরতেই বাবার হাত ভেঙে দিল ২ ছেলে

মাস দুয়েক আগে সড়ক দু'র্ঘটনা ডান পা ভেঙে যায় বৃ'দ্ধ ইয়াকুব মালিথা (৬০)। টানা ২ মাস চুয়াডা'ঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে রোববার বিকেলে বাড়ি ফেরেন তিনি।বাড়ি ফেরার কিছুক্ষণ পর দুই ছেলে জাহিরুল ও সাদিমান জমিজমা নিজেদের নামে লিখে দিতে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষরের জন্য চাপ দেয়। এতে অস্বীকৃতি জানালে ঘরের মধ্যে বাবাকে আট'কে ঘণ্টাব্যাপী কাঠ দিয়ে বেধড়ক পি'টিয়ে জ'খম করেন দুই ছেলে।

এতে একটি হাত ভেঙে যায় ইয়াকুব মালিথার।এলাকাবাসী রোববার রাত ৮টার দিকে আ'হত ইয়াকুবকে চুয়াডা'ঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তিনি বর্তমানে হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি আছে।আ'হত ইয়াকুব মালিথা চুয়াডা'ঙ্গা সদর উপজে'লার কুতুবপুর ইউনিয়নের নবিননগর গ্রামের পূর্বপাড়ার মৃ'ত সাবেদার মালিথার ছেলে। স্থানীয়রা জানান, ইয়াকুব মালিথার চার স্ত্রী। চতুর্থ স্ত্রী ও তার ছেলেকে নিয়ে বসবাস করে আসছেন তিনি।

দুই মাস আগে সড়ক দু'র্ঘটনায় তার ডান পা ভেঙে যায়। এতে দুই মাস চিকিৎসা শেষে রোববার বাড়ি আসার পর প্রথম পক্ষের স্ত্রীর দুই ছেলে স্ট্যাম্প নিয়ে জমিজমা ও বসতবাড়ি লিখে দিতে বলেন বাবাকে। ইয়াকুব এখন সম্পত্তি ছেলেদের দিতে অস্বীকৃতি জানালে তর্কবিতর্কের সৃষ্টি হয়। পরে দুই ছেলে জাহিরুল ও সাদিমান একটি ঘরে বাবা ইয়াকুব মালিথার হাত-পা বেঁধে নি'র্যাতন করে।

কাঠ দিয়ে ও ধা'রালো অ'স্ত্রের উলটো পিঠ দিতে বাবাকে পি'টিয়ে জ'খম করেন। পরে তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে উ'দ্ধার করে তাকে চুয়াডা'ঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। তারা আরও বলেন, এর আগেও এই জমিজমা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বাবাকে মা'রধর করেছিল তারা। আজ আবারও তারা পাশবিক নি'র্যাতন চালিয়েছে।সরেজমিনে চুয়াডা'ঙ্গা সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন ইয়াকুব মালিথা।

পাশেই চতুর্থ স্ত্রী ও তার ছেলে শয্যার পাশে বসে আছেন। কান্নাজড়িত কণ্ঠে ইয়াকুব মালিথা জানান, নিজেকে ওই দুই ছেলের বাবা বলে পরিচয় দিতেও ঘৃণা করছে আমা'র। যাদের কষ্ট করে মানুষ করেছি; আজ তারাই সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় নি'র্মম নি'র্যাতন করেছে।স্থানীয় ইউপি সদস্য ওহিদুল ইসলাম বলেন, এটি আসলেই মর'্মান্তিক একটি ঘটনা। জমিজমা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বাবাকে নি'র্মম নি'র্যাতন করেছে দুই ছেলে। চুয়াডা'ঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সোহানা আহমেদ বলেন, ইয়াকুব মালিথার অবস্থা শঙ্কামুক্ত। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জ'খমের চিহ্ন আছে। এছাড়াও ডান হাত ভেঙে গেছে।চুয়াডা'ঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খান বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। অ'ভিযোগ পেলে ত'দন্ত সা'পেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

About admin

Check Also

খেলতে যাই

খেলতে যাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *