পরিবারের সবাইকে খু’নে’র পরিকল্পনা করেন ছোট ভাই, সায় দেন বড় ভাই

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অ'ঙ্গরাজ্যের ডালাস শহরের একটি বাড়ি থেকে ছয় বাংলাদেশির লা'শ উ'দ্ধার করেছে পুলিশ। মা-বাবা, বোন ও নানিকে হ'ত্যা করে আ'ত্মহ'ত্যার পরিকল্পনা করেন পরিবারের ছোট ছেলে ফারহান তৌহিদ (১৯)। আর এতে সায় দেন জমজ বড় ভাই ফারবিন তৌহিদ।

এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী ফারহান তৌহিদের ফেসবুক স্ট্যাটাস পর্যালোচনা করে এলেন সিটি পুলিশের সার্জেন্ট জন ফেলী জানান, সম্ভবত গত শনিবার এমন নৃ'শংস ঘটনা ঘটে।

ফারহান তৌহিদ ফেসবুকে তাদের আ'ত্মহ'ত্যা ও অন্যদের হ'ত্যার ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছে উল্লেখ করে স্থানীয় পুলিশ এটিকে ‘'হতাশার ধা'রা বিবরণী’ হিসেবে বর্ণনা করেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, কোনো কারণে হয়তো তৌহিদুল ইসলামের দুই ছেলে বি'ষন্নতায় ভুগছিলেন।

ফেসবুকে দেওয়া স্ট‌্যাটাসে ফারহান উল্লেখ করেছেন, ২০১৬ সালে নবম গ্রে'ডে পড়া অবস্থায় তিনি বি'ষন্নতায় আ'ক্রা'ন্ত হয় বলে চিকিৎসকরা জানান।

এ জন্য তিনি পরীক্ষায় বারবার ফেল করেন। এ জন্য তিনি নিজের শরীরে দু’বার কে'টেছে। খুবই কষ্ট পান। তার মনে আছে ২০১৭ সালের ২২ আগস্ট, কাঁচির মত ধা'রালো অ'স্ত্র দিয়ে নিজের শরীরে কে'টেছিলেন। দুঃখ লাঘবের পথ খুঁজেছিলেন তিনি।

এ অবস্থায় তার ঘনিষ্ঠ তিন বন্ধু তাকে ত্যাগ করেন। এমনি 'হতাশার মধ্যেই তাকে ভর্তি করা হয় ইউনিভার্সিটি অব অস্টিনে কম্পিউটার সায়েন্স ডিপার্টমেন্টে। এরপর তিনি ভাবেন যে, এবার জীবনটা সঠিক ট্র্যাকে উঠেছে। বাস্তবে তা ঘটেনি। বি'ষন্নতায় জর্জরিত হয়ে পুনরায় তিনি নিজের শরীর র'ক্তাক্ত করেন।

সেখানে তিনি আরো লিখেছেন, যদি আ'ত্মহ'ত্যা করি তাহলে গোটা পরিবার সারাটি জীবন কষ্ট পাবে। সেটি তিনি চান না। সেজন্যে পরিবারের সবাইকে নিয়ে মা'রা যাওয়ার চূড়ান্ত সি'দ্ধান্তে ভাইকে সামিল করেন। দু’ভাই যান ব'ন্দুক কিনতে। তিনি হ'ত্যা করবেন ছোট বোন আর নানিকে। আর তার ভাই করবেন মা-বাবাকে। এরপর উভয়ে আ'ত্মহ'ত্যা করবে। যাতে কেউ থাকবে না কষ্ট পাওয়ার।

সেখানে আরো উল্লেখ করেন, ব'ন্দুক কেনার ব্যাপারটি খুবই সহজ। তার ভাই গেলেন দোকানে। বললেন যে, বাড়ির নিরাপ'ত্তার জন্যে ব'ন্দুক দরকার। দোকানি কয়েকটি ফরম ধরিয়ে দিলেন, সেখানে স্বাক্ষর করলেন ভাই। এরপর হাতে পেয়ে যান কাঙ্ক্ষিত বস্তুটি।

About admin

Check Also

মক্কা-মদিনায় ১০ রাকাত তারাবির নির্দেশ

করো’নাভাইরাসের কারণে সারাবিশ্বেই এক ভ'য়াবহ সঙ্কট তৈরি হয়েছে। এর মধ্যেই বিভিন্ন দেশে আগামীকাল থেকে রোজা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *